গাছপালা কি বজ্রপাতে সাড়া দেয়

লেখক - ড.সৌমিত্র চৌধুরী



শুরু করতে হবে ‘করোনা’ দিয়ে। করোনা ভাইরাস নয় কিন্তু। করোনা শব্দটির অনেক মানে। মুকুটের মত দেখতে কোন বস্তুকেও বলে করোনা। সূর্যের চারদিকে যে আলোকছটা দেখা যায় (সূর্যগ্রহণের সময়), তার নাম করোনা। আমাদের দাঁতের উপর অংশের নামও করোনা। ‘করোনা’ নাম দিয়ে বহু বানিজ্যিক বস্তুও বিশ্ববাজারে ছেড়েছে অনেক কোম্পানি। আবার গাছের পাতা, তারও আছে করোনা। ‘বৃক্ষপত্রের করোনা!’ আশ্চর্য কথা বইকি। এর সঙ্গে আবার জড়িয়ে আছে অনেক কিছু। বজ্রপাত, মুক্তমূলক ইত্যাদি শব্দ।  

মুক্ত মূলক, ইংরাজিতে ফ্রি র‍্যাডিক্যাল (Free Radical) । হতে পারে অনু, পরমানু কিংবা আয়ন। তবে এর মধ্যে বিজোড় সংখ্যার ইলেকট্রন থাকতেই হবে। রসায়নশাস্ত্রের একটি বড় বিষয়, মুক্তমূলক বা ফ্রি র‍্যাডিক্যাল। জীববিজ্ঞানেও বহু চর্চিত।

ফ্রি-রেডিক্যালের আরেকটু পরিচয় দেওয়া যাক। ফ্রি-রেডিক্যাল শরীরে মুক্তভাবে চলাফেরা করে। এক প্রকার অতি সক্রিয় অণু এবং বিশেষ ক্ষমতাবান। কোষ ধ্বংস করে। কোষের ডিএনএ-এর মধ্যে পরিবর্তন ঘটিয়ে দিতে পারে। তাই খুবই ক্ষতিকর। ফ্রি-রেডিক্যালের উদাহরণ হিসাবে উল্লেখ করা যায়, হাইড্রক্সিল আয়ন-এর কথা ।

অন্য ভাবেও সংজ্ঞায়িত হতে পারে। বিজোড় ইলেকট্রন সম্বলিত যে কোনও প্রজাতির নাম ফ্রি র‌্যাডিকেল। বাংলায় ‘মুক্ত পরমাণুজোট’। যেসব পরমাণুগুচ্ছ স্বাধীনভাবে না থেকে মৌলিক পদার্থের পরমাণুর মতো যৌগ গঠনে অংশ নেয়, তারাই ফ্রি র‌্যাডিক্যাল (Free Radical) ।

দিস্তা দিস্তা কাগজ লেখা দিয়ে ভরিয়ে তুললেও শেষ করা যাবে না ফ্রি র‌্যাডিক্যাল কথন। বহু রকমের এবং বহু ধরনেরে কার্যাবলী এদের। হাইড্রক্সিল ফ্রি র‌্যাডিক্যালের কথা বলা হয়েছে। এছাড়াও আছে অক্সিজেন ফ্রি র‌্যাডিক্যাল , হাইড্রোপারঅক্সিল, হাইড্রোজেন পারঅক্সাইড ইত্যাদি। কী ভাবে কাজ করে এরা? কোষের নিউক্লিয়াসে ঢুকে বিভিন্ন সিগন্যাল পাঠায়। জিনের কাজ নিয়ন্ত্রণ করে। বিষয়টি নিয়ে বহু গবেষণাপত্র প্রকাশিত হয়েছে। লেখা হয়েছে অনেক বইও। একটি বইয়ের কথা উল্লেখ করা হল  (Signalling Mechanisms — from Transcription Factors to Oxidative Stress, Springer publication, 1995; Editors: Lester Packer, Karel W. A. Wirtz)।