slide show

জানতে গেলে পড়তে হয়, সায়েন্টিফিলিয়া পড়ুন এবং অন্যকেও পড়ার সুযোগ করে দিন 

সূচিপত্র

কল্পবিজ্ঞান

গল্পবিজ্ঞান

বিজ্ঞান নিবন্ধ

পোড়োদের পাতা

বিজ্ঞানের চাঞ্চল্যকর সংবাদ

সুপর্ণ চৌধুরীর বিজ্ঞানের কার্টুন

                

হৃৎপিণ্ড, পেশী এবং স্বরতন্ত্রীর ক্ষত নিরাময়ে কৃত্রিম টিস্যু

দীপঙ্কর

                                       
সম্প্রতি ম্যাকগিল বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা এক কৃত্রিম টিস্যু তৈরি করেছেন যা হৃৎপিণ্ড, পেশী এবং স্বরতন্ত্রীর মেরামত করতে কাজে আসবে। হৃদপিন্ডের ক্ষত মেরামতির পরে আরোগ্যের পথটি দীর্ঘ এবং অমসৃণ। এই কারণে নিরাময় হওয়ার ব্যাপারটি বেশ চ্যালেঞ্জিং। স্বরতন্ত্রীর মেরামতের সময়ও চিকিৎসকরা একই সমস্যার সম্মুখীন হয়। প্রফেসর লাক মঙ্গিউ এবং তাঁর সহযোগীরা ইঞ্জেকশনযোগ্য হাইড্রোজেল তৈরি করেছেন যা ক্ষত নিরাময় করবে।  এই হাইড্রোজেল একটি জৈব উপাদান যা কোষের থাকা এবং বেড়ে ওঠার জায়গা সরবরাহ করে। শরীরে এই ইঞ্জেকশন প্রয়োগ করলে এই জৈব উপাদান এক স্থায়ী ঝাঁজরা কাঠামো তৈরি করে যা সজীব কোষের বৃদ্ধি করে ক্ষত নিরাময় করে। এর আগে কোন হাইড্রোজেলের মধ্যেই এমন ঝাঁঝরা অথচ শক্তপোক্ত ধর্ম দেখা যায় নি। এই আবিষ্কার বিজ্ঞানীদের ড্রাগ ডেলিভারি, টিস্যু ইঞ্জিনিয়ারিং ইত্যাদি বিভিন্ন কাজে এই হাইড্রোজেলের তৈরি কৃত্রিম টিস্যুকে ব্যবহারের জন্য প্রলুব্ধ করবে এমনটাই আশা করছেন এই প্রজেক্টের বিজ্ঞানীরা।       

গ্রীন এনার্জির সন্ধানে আশার আলো

দীপঙ্কর

                  

এখনকার পৃথিবীতে সবচেয়ে আলোচিত সমস্যা হল ‘বিশ্ব উষ্ণায়ন’। এই সমস্যার একটি বড় কারণ হল জীবাশ্ম জ্বালানীর অতিরিক্ত ব্যবহার যা পরিবেশে  কার্বন ডাই অক্সাইড বৃদ্ধির জন্য দায়ী। তাই বিজ্ঞানীরা কয়েক দশক ধরে লেগে আছেন বিকল্প জ্বালানীর সন্ধানে। বিকল্প জ্বালানী হিসাবে হাইড্রোজেনের কথা মাথায় থাকলেও , স্বাভাবিক তাপমাত্রায় এই মৌল গ্যাসীয় অবস্থায় থাকে বলে একে জ্বালানী হিসাবে ব্যাবহার করতে খুব কম তাপমাত্রায় এবং / বা উচ্চ চাপে সংরক্ষণ করতে হয় যা অত্যন্ত ব্যয়সাপেক্ষ। সম্প্রতি ট্রিনিটি কলেজের বিজ্ঞানীরা কোয়ান্টাম কেমিস্ট্রিকে ব্যবহার করে সোনা, রূপো , তামা এবং হাইড্রোজেনের সমন্বয়ে এমন এক  মেটাল হাইড্রাইডের জটিল যৌগ তৈরি করেছেন যা স্বাভাবিক তাপমাত্রায় হাইড্রোজেনকে সংরক্ষণ করতে সক্ষম। ডঃ ক্রিস্টিনা ত্রুজিল্লো , প্রোফেসর ইবন অ্যালকোর্তা এবং তাঁদের সহযোগীরা  সম্প্রতি তাঁদের এই গবেষনার ফল ‘কেমিস্ট্রি ওপেন’ গবেষণা পত্রিকায়  প্রকাশ করেছেন। তাঁদের এই গবেষণার ফল বিকল্প জ্বালানী রূপে বহু প্রতীক্ষিত হাইড্রোজেনকে অদূর ভবিষ্যতে জায়গা করে দেবে এমনটাই আশা করছেন বিজ্ঞানীরা।


  • সম্পাদক – ডঃ দীপঙ্কর বসু
  • সহকারী সম্পাদক – দেবাশীস দে এবং ডঃ শ্রুতিসৌরভ বন্দ্যোপাধ্যায়
  • উপদেষ্টা মণ্ডলী – সুজিতকুমার নাহা, পিনাকীশঙ্কর চৌধুরী, কমলবিকাশ বন্দ্যোপাধ্যায়, ডঃ জয়শ্রী পট্টনায়ক, সৌম্যকান্তি জানা, গার্গী বসু 
  • পত্রিকার নামকরণ – ডাঃ অনন্যা বসু
  • পত্রিকার নাম অলংকরণ এবং প্রচ্ছদ – সংহিতা দে
  • কারিগরি সহায়তা – DWEB CONSULTANTS PVT. LTD.
Subscribe Free Newsletters
E-Mail:
Refer your Friend
Tell a Friend
Follow us
Copyright © 2020. www.scientiphilia.com emPowered by dweb